Read কবি by Humayun Ahmed Online

কবি

ফলযাপে লেখা কিছু কথাসিলেটের মীরাবাজারের পুরানো শযাওলা ধরা দালানের একটা ঘর। মধযরাতরি। পাঁচ-ছ’ বছর বয়েসী একটি শিশু বাবা-মা’র পাশে ঘুমুচছে। বাইরে উথাল পাথাল জোছনা। সেই জোছনা বাড়ির ভেনটিলেটর দিয়ে ঘরে ঢুকেছে, পড়েছে শিশুটির মশারির ছাদে। মনে হচছে আলোর ফুল ফুটে আছে। হঠাৎ শিশুটির ঘুম ভেঙে গেল। সে বিসময় এবং ভয় নিয়ে তাকিয়ে রইল জোছনার ফুরের দিকে। এক সময় বাবাকে ডেকে তুলে কাঁদো কাঁদো গলফ্ল্যাপে লেখা কিছু কথাসিলেটের মীরাবাজারের পুরানো শ্যাওলা ধরা দালানের একটা ঘর। মধ্যরাত্রি। পাঁচ-ছ’ বছর বয়েসী একটি শিশু বাবা-মা’র পাশে ঘুমুচ্ছে। বাইরে উথাল পাথাল জোছনা। সেই জোছনা বাড়ির ভেন্টিলেটর দিয়ে ঘরে ঢুকেছে, পড়েছে শিশুটির মশারির ছাদে। মনে হচ্ছে আলোর ফুল ফুটে আছে। হঠাৎ শিশুটির ঘুম ভেঙে গেল। সে বিস্ময় এবং ভয় নিয়ে তাকিয়ে রইল জোছনার ফুরের দিকে। এক সময় বাবাকে ডেকে তুলে কাঁদো কাঁদো গলায় বলল, “এটা কি?” শিশুর বাবা ফুলের রহস্য ব্যাখ্যা করলেন-“ভেন্টিলেটারের ফুলের নকশাকাটা। জোচনা ভেন্টিলেটার দিয়ে ঢুকেছে বলেই ফুল হয়ে মশারির ছাদে পড়েছে। ভয়ের কিচ্ছু নেই।” শিশুর ভয় তারপরেও যায় না। তখন বাবা বললেন, “হাত দিয়ে ফুলটা ধর, ভয় কেটে যাবে।” শিশুটি সেই ফুল হাত দিয়ে ধরতে গেল। যতবারই ধরতে যায় ততবারই ফুল হাত গলে বের হয়ে যায়। কবি-জোছনার ফুল ধরার গল্প। মহান বোধকে স্পর্শ করার আকাংক্ষার গল্প। জীবনকে দেখা এবং না দেখার গল্প...

Title : কবি
Author :
Rating :
ISBN : 9789844370999
Format Type : Hardback
Number of Pages : 277 Pages
Status : Available For Download
Last checked : 21 Minutes ago!

কবি Reviews

  • সোহেল ইমরান
    2019-01-17 09:23

    হুমায়ুনের সেরাগুলোর একটি।প্রথম অর্ধেক পড়লে হাসতে হাসতে পেটে খিল ধরে যাবে,বাকী অর্ধেক পড়লে কিছুক্ষণ পরে পরে চোখ দিয়ে জল গড়াবে।এক কথায় অসাধারণ :-D

  • Manab
    2019-01-12 10:07

    আট দশটা কবি লিখলেও ভালো লাগত।

  • ইচ্ছে অনিরুদ্ধ
    2019-01-10 10:20

    জীবনে কতোবার যে আমি "কবি" উপন্যাসের "আতাহার" হতে চেয়েছি! একদিকে আমার মধ্যবিত্ত জীবনের টানাপোড়েন আর অন্যদিকে কবিতাময় এক বাউণ্ডুলে জীবন । একদিকে উচ্চবিত্ত পরিবারের আদরের দুলালী অভিমানী নীতুর ভালোবাসা আর অন্যদিকে আমার মধ্যবিত্ত জীবনের কঠিন বাস্তবতা, বারংবার বুঝেও না বোঝার ভান করে নীতুর ভালোবাসাকে এড়িয়ে যাওয়া । এ যেন এক কঠিন লুকোচুরি খেলা!আবার মাঝে মাঝে মনে হয়- আচ্ছা, আমি নিজেকে আতাহার হিসাবে কল্পনা করছি কেন ? আমি তো নিজেকে মজিদ হিসাবেও কল্পনা করতে পারতাম! আমি কি নৈঃশব্দবতীর প্রেমে পড়িনি? বারবারই তো আমি নৈঃশব্দবতীর প্রেমে পড়ে হাবুডুবু খেয়েছি । নৈঃশব্দবতীর পায়ের কাছে যখন সকালের রোদ্গুলো হুটোপুটি খেতো তখন কি আমি প্রচন্ড ঈর্ষা অনুভব করি নাই ??এমনও তো হতে পারে, কোনো একদিন মজিদের মতো আমিও এই কাব্যময় বাউণ্ডুলে জীবন ছেড়ে ছুড়ে দূরের কোনো এক অজোপাড়া গাঁয়ের গার্লস স্কুলে মাস্টারি করছি । যেখানে আমার জীবন্ত কবিতা নৈঃশব্দবতী আছে, সেখানে আমার কবিতার আর কী প্রয়োজন!! নাহ, উপন্যাসের আরেক কেন্দ্রীয় চরিত্র সাজ্জাদ হিসাবে আমি নিজেকে কখনোই কল্পনা করতে পারিনি, হয়তো মধ্যবিত্ত জীবনের কঠিন শৃঙ্খলের মধ্যে বেড়ে উঠেছি বলেই উচ্চবিত্ত পরিবারের ছেলে সাজ্জাদের মতো উড়নচণ্ডী, ভবুঘুরে হিসাবে নিজেকে ভাবতে পারিনি । ভাবতে পারিনি মাতাল হয়ে রাতের শিল্পী কণার বাসায় রাত কাঁটানোর কথাও ।এ উপন্যাসের পার্শ্বচরিত্র পত্রিকার সম্পাদক গণি ভাই, আতাহারের ছোট বোন মিলি, ছোট ভাই ফরহাদ,বড় আপা মণিকা, বাবা রশীদ আলী সাহেব, মা সালমা বানু, সাজ্জাদের বাবা হোসেন আলী সাহেব, সাজ্জাদের বন্ধু আর্টিস্ট মোসাদ্দেক সাহেব, আতাহারের বন্ধু আব্দুল্লাহ সাহেব, হাসপাতালে আতাহারের মাকে দেখাশোনা করা সেই মহিলা ডাক্তার কিংবা রাতের শিল্পী কণা কাউকেই আসলে আমার কাছে পার্শ্বচরিত্র বলে মনে হয়নি । প্রতিটা চরিত্রই উপন্যাসের সাথে এমনভাবে মিশে গেছে যে প্রতিটা চরিত্রই আপনাদেরকে কখনো হাসাবে, কখনো কাঁদাবে, আবার কখনো ভাবাবে ।মূল্যায়ন:এ পর্যন্ত হুমায়ূন আহমেদ স্যারের যতোগুলো লেখা পড়েছি সেগুলোর মধ্যে তাঁর লেখা "কবি" উপন্যাসটা কেন যেনো একটু বেশিই ভালো লাগে । যতোবারই পড়ি একবারের জন্যেও মনে হয় না স্বাদটা আগের চেয়ে ফিকে হয়ে গেছে । বরং ভালো লাগাটা আগের চেয়ে আরও বেড়ে যায় ।এটাকে বইয়ের রিভিউ বলা যায় কি না আমি ঠিক জানি না! তবে এটা বলতেই পারি যে "হুমায়ূন আহমেদ" স্যারের অনেকগুলো বইয়ের মধ্য থেকে একটা মাত্র বই বেছে নিতে বললে আমি নিঃসঙ্কোচে "কবি" বইটাকে বেছে নেবো।

  • Sourav Anando
    2019-01-03 13:01

    হুমায়ুন আহমেদের লেখা পড়তে গেলে একটা কথাই শুধু মনে হয় , এই লোকটার সব থেকে বড় গুন ছিলো অনেক কঠিন কথা অনেক সহজ ভাবে বলতে পারা। আর এখানেই কবি হিসেবে তার সার্থকতা ! ৪*৫/৫

  • Zahidul Islam Khan
    2019-01-16 12:18

    এই বইয়ের ক্ষেত্রে নূহাহাহা এর একটা কথা আমার বেশ ভাল্লাগসে, সে বলছে, "This is not just a book! It's witchcraft!"

  • Rejwana Haque Pial
    2018-12-30 13:12

    একদম টিপিকাল হুমায়ুনীয়।তাঁর এইসব বই পড়লেই প্রতিবার উপলব্ধি হয় উনি কোথাও কেউ নেই,এইসব দিনরাত্রিগুলো লিখার পর আর না লিখলেই ভালো করতেন।এই শব্দগুলো লিখার চেয়ে বারান্দায় বসে উনি যদি খালি জোছনাও দেখতেন,পৃথিবী অনেককিছু পেয়ে যেত।

  • Ahsan
    2018-12-29 11:54

    Boi ta pore oshadharon kisu mne hoi nai...typical humayun ahmed er boi......

  • আদন
    2019-01-05 14:00

    নতুন বোতলে পুরনো মদ।

  • Mir AlMasud
    2019-01-12 11:24

    এই বইয়ের রিভিউ লেখার সাধ্য আমার নাই।তবে অনুভুতির তরজমা তো করতেই পারি। এই উপন্যাস একাধিক ব্যর্থ মানুষদের উপাখ্যান। রশীদ সাহেব মেয়ের বিয়ে দিতে পারছেন না , ডিগ্রীধারি বেকার দুই ছেলে সহ এক পরিবারে রোজগার চালু রাখতে বুড়ো বয়সে ছাত্র পড়াতে হচ্ছে। স্ত্রী কেন ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন তা জেনেও জানতে পারেন নি হোসেন সাহেব। মায়ের পরপুরুষের হাত ধরে চলে যাওয়া মেনে নিতে পারেনি সাজ্জাদ।দিনে দিনে বেড়ে উঠেছে antisocial psychopath হিসেবে। কবি হয়ে ওঠার স্বপ্নেবিভোর সাজ্জাদের ঠাই হয় মাদকাসক্তদের চিকিত্সাকেন্দ্রে। সাজ্জাদের দুই বন্ধু মজিদ আর আতাহার। মজিদের কাছে কবিতা আরাধনার বস্তু।সুবর্ন পত্রিকার সম্পাদকের মতে সত্যি সত্যি কবি হয়ে উঠছিল মজিদ। জাহেদার নিষ্কলুষ প্রেমও তার আরাধ্য। শেষে কবিত্ব বিসর্জন দিয়ে সংসারী হয় মজিদ। এদিকে লেখার হাত যেমনই, হোক কবিতার জন্য প্রায় সবকিছুই বিসর্জন দেয় আতাহার।কবিতা আর নীতু এই দুইজন বাদে বাকি সবই জীবন থেকে বাদ গেছে তার।উপন্যাসের শেষ অংশে এসে তারাশঙকরের নিতাই কে কোট করছেন লেখক ("জীবন এত ছোট কেনে")। মানুষের জীবনের অপ্রাপ্তি নিয়ে উপন্যাস সম্ভবত অনেক লেখা হয়েছে। তারাশংকরের "কবি"র পর হুমায়ুন আহমেদের "কবি" যেন এক সিক্যুয়েল।হয়তো অন্য কোন লেখকের লেখায় আবার আরো "কবি" লেখা হবে। যতবার লেখা হবে ততবারই হয়তো আমি এমনটাই মুগ্ধ হয়ে পড়ব।

  • Jahidur Shawon
    2019-01-16 13:20

    আমি রিভিউ লিখতে পারিনা। কোন বইয়ের রিভিউ লিখতে গেলে আমার অনুভূতি লেখা হয়ে যায়, বই নিয়ে কিছু বলা হয়না। হুমায়ুন আহমেদ আমার প্রিয় লেখকের একজন। তাঁর সব বই আমার পড়া, কিন্তু কিভাবে জানি 'কবি' পড়া হয়ে ওঠেনি। স্যারের বই পড়ার পিছনে এক অদ্ভুত কারন আছে, তাঁর প্রায় সব বইতে চমৎকার ভাবে খাবারের বর্ণনা থাকে, সহজ ভাষায় রেসিপি। সব রেসিপি যে নতুন তা নয় কিন্তু, সাধারন আটপৌরে খাবার যা আমাদের নিত্য প্রয়োজন। এখানেই লেখনীর জাদু, স্যারের লেখায় সাধারন খাবার হয়ে যায় অসাধারণ। এই উপন্যাসে পেয়েছি, একদিন নতুন দৃষ্টিতে চেখে দেখব। উপন্যাসের এক চরিত্র একটা ইচ্ছা পুরন করে, সেই ইচ্ছা আমারও হয়। কিন্তু সাহস হয়না। কারন আমি মানুষ, রক্ত মাংসের মানুষ। আমাদের সব ইচ্ছা পুরন হতে নেই। তাই উপন্যাসের চরিত্রের মাঝে নিজেকে খোঁজা। আর এখানেই একজন লেখকের সাফল্য।

  • Mehadi Menon
    2019-01-01 11:05

    অসাধার একটি বই :: পুত্রের হাতে পিতার প্রেম পত্র :: আসলেই কি তাই :: জানতে চাইলে পড়তে পারেন ::

  • Sirajam Munir Shraban
    2018-12-24 10:58

    অসাধারণ ছিল। হুমায়ুন আহমেদের পড়া সবচে ভাল কতগুলো উপন্যাসের মাঝে এটি একটি।

  • Tasnuba Siddiqui nivu
    2018-12-28 12:15

    I like this book very much among all the creation of the writer...

  • Nafis Ahamed
    2019-01-10 10:19

    বইটা অনেক আগে প্রায় ৫ বছর আগে পড়া।কাহিনী ভুলে গিয়েছিলাম,তাই বহুদিন পর আবার পরলাম।বইটা ভাল বেশ ভাল,পড়ার সময় ঘোর লাগে।পড়া শেষ হলে কিছু সময়ের জন্য হলেও ব্যারথ কবি হতে ইচ্ছা করে।

  • Uday Jaman
    2019-01-06 14:18

    বইটি চমৎকার। না, আসলেই চমৎকার। হুমায়ূন আহমেদের সাধারণ লেখার মাঝে হঠাৎ করেই কিছু অসাধারণ লেখা বেরিয়ে আসে। বইটি এরকম।

  • Supta Taposi
    2019-01-11 12:57

    (Y)

  • Zarif Rahman
    2019-01-21 14:13

    masterpiece

  • MD Rifat
    2018-12-27 15:23

    পরিবার , পরিস্থিতি আর ভালোবাসা

  • Moumita Hride
    2018-12-26 08:16

    one of the best book of sir Humayun Ahmed... i love this book :)

  • ফরহাদ নিলয়
    2018-12-23 14:21

    প্রচন্ড হাহাকার মেশানো লেখা। অথচ প্রথম দিকে মনে হয়েছিল কোন কমেডি হতে যাচ্ছে।হুমায়ূন স্যারের সেরা ১০ বইয়ের মাঝে অবশ্যই থাকবে এটা।